হবিগঞ্জ পৌরসভায় দুদিনব্যাপী পানির বিল ও পৌরকর মেলা শুরু ॥ করদাতাগনের স্বতঃস্ফুর্ত উপস্থিতি ॥

‘চলতি অর্থবছরে ইউজিপ-৩ এর লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশী পৌরকর আদায় হবে। অতীতে যেভাবে পৌরকরের টাকায় হবিগঞ্জ পৌর এলাকায় উন্নয়ন হয়েছে, আগামীতে এ উন্নয়ন কর্মকান্ড আরোও বেগবান হবে।’-হবিগঞ্জ পৌরসভার কর আদায় সহজীকরণ ও কর প্রদানে পৌরবাসীকে উদ্বুদ্ধকরনের লক্ষ্যে দুদিন ব্যাপী পানির বিল ও পৌরকর মেলার উদ্বোধন করতে গিয়ে এসব কথা বলেন মেয়র আলহাজ্ব জি, কে গউছ। মেয়র বলেন, বিগত অর্থবছরে ইউজিপের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৮৫ শতাংশ পৌরকর আদায়। সেখানে হবিগঞ্জ পৌরসভা ৮৭ শতাংশ পৌরকর আদায় করেছে। বর্তমান অর্থবছরে তাদের দেয়া ৯০ শতাংশ লক্ষ্যমাত্রা হবিগঞ্জ পৌরসভা ছাড়িয়ে যাবে বলে মেয়র আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, প্রকল্পের চাহিদা অনুযায়ী ইতিমধ্যে দরিদ্র মানুষের কর্মসংস্থান, আর্ত-মানবতার সেবায় ভূমিকা রাখা, নারীদের জন্য মাদার কর্ণার, ঘাটলা নির্মান ও অবকাঠামো উন্নয়ন সহ নানাবিধ উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন করেছে হবিগঞ্জ পৌরসভা। আসছে দিনগুলোতে অস্বচ্ছল মহিলাদের সেলাই প্রশিক্ষণ ও সেলাই মেশিন অনুদান দিয়ে তাদেরকে স্বাবলম্বী করে তোলা হবে। পৌরসভার নিজস্ব তহবিল দিয়েই পৌর এলাকার নাগরিকদের জীবনমান উন্নয়নে ব্যাপক কর্মসূচী বাস্তবায়ন করা হবে। বুধবার পৌরভবনের হল রুমে দুদিন ব্যাপী পানির বিল ও পৌরকর মেলার উদ্বোধন করেন মেয়র আলহাজ্ব জি, কে গউছ। উদ্বোধনী সভায় আরো বক্তব্য রাখেন পৌরকর ও নিরূপণ স্থায়ী কমিটির সভাপতি শেখ মোঃ উম্মেদ আলী শামীম, পৌর কাউন্সিলর শেখ নূর হোসেন, মোঃ আবুল হাসিম, মোহাম্মদ জুনায়েদ মিয়া, গৌতম কুমার রায়, খালেদা জুয়েল, অর্পনা পাল ও ইউজিপ-৩ এর সমন্বয়কারী শাহীনুল হক। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পৌর সচিব মোহাম্মদ নূরে আলম সিদ্দিকী। পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াৎ করেন মোঃ আব্দুল কাইয়ূম। মেলা উদ্বোধনের পর পৌরকর পরিশোধ করায় পৌরসভার পক্ষ থেকে কর নিররূপণ ও আদায় সংক্রান্ত স্থায়ী কমিটির সভাপতি পৌর কাউন্সিলর শেখ মোঃ উম্মেদ আলী শামীমের হাতে সনদ তুলে দেন মেয়র আলহাজ্ব জি, কে গউছ। অনুষ্ঠানে বৃন্দাবন কলেজের পক্ষ থেকে ৮ লক্ষ টাকা পৌরকর প্রদান করেন প্রধান সহকারী শাহ আব্দুল বশির। মেয়র মেলায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে কর পরিশোধ করার জন্য পৌরবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। সাথে সাথে দুদিন ব্যাপী এ মেলায় সকল সরকারী, বেসরকারী করদাতাগণকে নিজ নিজ পানির বিল ও পৌরকর পরিশোধের আহ্বান জানান। তিনি দল-মত, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে নিয়ে পৌরসভার উন্নয়নে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। বুধ ও বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে ৫টা পর্যন্ত পৌরভবনের হলরুমে করআদায় ও ব্যাংক বুথের মাধ্যমে বিশেষ রিবেট সুবিধাদি দিয়ে পৌরভবনে পানির বিল ও পৌরকর গ্রহন করা হচ্ছে। আজ বুধবার হবগিঞ্জ পৌরসভার দুদনিব্যাপী করমলোর প্রথমদনি পৌরকর আদায় হয়ছেে ৩২ লাখ ৩৯ হাজার ৬ শ ৫৯ টাকা। এর মধ্যে ১৫ লাখ ৮ শ ৩৭ টাকা সরকারী এবং ১৭ লাখ ৩৮ হাজার ৮ শ ২২ টাকা বসেরকারী পৌরকর। এছাড়া পানরি বলি আদায় হয়ছেে ৫৩ হাজার ৬ টাকা।

Share on Facebook